26-Apr-2017

B H Khan School & College



Mobile: 01762682722, Phone: 48953537


  • slide image

    School Bhabon

  • slide image

    Funder of Prome Group

  • slide image

    Chairmen & all Teachers

  • slide image

    Female Teachers

  • slide image

    Drawing and General Knowledge Competition-2016

  • slide image

    16 December' 2016

  • slide image

    School Bhabon

Latest Notice

বি এইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ
কেন এটি একটি ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান?

বি এইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রচারিত বিজ্ঞাপন ও প্রচারপত্রে আমরা একে একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিষ্ঠান হিসাবে উপস্থাপন করেছি। অনেকে মনে করতে পারেন যে, এটি একটি প্রচারণা চমক; সবাইতো এমনভাবে বলে বা প্রচার করে। অর্থাৎ, নিজ প্রতিষ্ঠানকে সবাইতো বিভিন্ন কৌশলে উপস্থাপন করার চেষ্টা করে। কেমন করে আমাদের এই কাঙ্খিত প্রতিষ্ঠানটি একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিষ্ঠান হিসাবে বেড়ে উঠবে, এ নিয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে। নিচের অনুচ্ছেদগুলিতে তার অবতারণা করা হল।
(১) আধুনিক ও সুপরিসর ক্যাম্পাসঃ কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মনের উপর পরিবেশের প্রভাব অপরিসীম। এই প্রয়োজনীয়তাকে সামনে রেখে বি এইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজের ক্যাম্পাসটিকে করা হয়েছে সুপরিসর, সুসজ্জিত ও সুবিন্যস্ত। প্রায় তিন বিঘা ভূমির উপর তিনটি পৃথক ইমারতে শিক্ষার্থীদের ক্লাস, ল্যাবরেটরী, পাঠাগার, ক্যান্টিন স্থাপন করা রয়েছে। এছাড়া শিশু শ্রেণি সমূহের শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে সুসজ্জিত ক্লাস রুমসহ বিভিন্ন প্রকারের খেলার সামগ্রী ও বিনোদনের আয়োজন।
(২) ল্যাংগুয়েজ ল্যাবঃ বিশুদ্ধভাবে বাংলা ও ইংরেজিতে কথোপকথন একজন সুনাগরিকের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে আমরা স্থাপন করছি একটি অত্যন্ত আধুনিক ল্যাংগুয়েজ ল্যাব বা ভাষা গবেষণাগার, যেখানে অডিও-ভিজুয়াল পদ্ধতিতে বিশুদ্ধ বাংলা ও ইংরেজি কথোপকথন প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।
(৩) ইংরেজি-নির্ভর শিক্ষাঃ বর্তমান বিশ্বে একজন সুনাগরিক হিসাবে গড়ে উঠার জন্য ইংরেজিতে কথোপকথনে পারদর্শিতা একটি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত প্রয়োজনীয়তা। বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে বি এইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র-শিক্ষকের জন্য ইংরেজিতে কথোপকথন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভার্শনে শিক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও ইংরেজিকে প্রাধান্য দেওয়া হবে, কারণ ইংরেজি এখন পরিপূর্ণভাবে আন্তর্জাতিক ভাষা। এটি ছাড়া উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করা অসম্ভব। এছাড়া, ভাল চাকুরী/ব্যবসা করার জন্য এই ভাষার কোন বিকল্প নেই। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক-শিক্ষার্থী সকলেই শুদ্ধ উচ্চারণে ইংরেজি কথোপকথন চর্চা করবে। একজন শিক্ষার্থী ভুল-শুদ্ধ মিশ্রণে ইংরেজিতে কথোপকথনের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সঠিকভাবে ইংরেজিতে কথোপকথনে পারদর্শী হয়ে উঠবে। ইংরেজির উপর শিক্ষকদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে এবং তাঁদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরাও ধীরে ধীরে বিশুদ্ধ ইংরেজিতে কথোপকথনে পারদর্শী হয়ে উঠবে।
(৪) সুশিক্ষিত ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলী এই প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন কর্মক্ষেত্রে অত্যন্ত অভিজ্ঞ ব্যক্তিবর্গ। অধ্যক্ষ হিসাবে রয়েছেন সেনা শিক্ষা কোরের অবসরপ্রাপ্ত একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা যিনি ক্যাডেট কলেজ, বিকেএসপি, শহীদ আনোয়ার, বেপজা পাবলিক কলেজসহ ছয়টি খ্যাতনামা কলেজের ১৫ বছরের অভিজ্ঞ সাবেক অধ্যক্ষ। উপাধ্যক্ষ (একাডেমিক) একজন অবসরপ্রাপ্ত মেধাবী ও চৌকষ সামরিক কর্মকর্তা, যিনি মাইলস্টোন কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ এবং সাংস্কৃতিক অংগনে সুপরিচিত। উপাধ্যক্ষ (প্রশাসন) ১৪ বছরের অভিজ্ঞতাসহ একটি প্রখ্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ এবং কো-অর্ডিনেটর ছিলেন যিনি প্রশাসনিক কাজে অত্যন্ত দক্ষ। আগামী জানুয়ারী ২০১৭ মাসে ক্লাস শুরু হবার আগেই ৯০০ আবেদনকারী থেকে ৭৫ জন শিক্ষক/ শিক্ষিকাকে বিশেষজ্ঞ নির্বাচকমন্ডলীর সূক্ষ বিচার-বিবেচনার মাধ্যমে অত্যন্ত সুশিক্ষিত ও চৌকষ শিক্ষক-শিক্ষিকাদেরকে মনোনীত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে নভেম্বর ২০১৬ এর শুরু থেকে ৪০ জন শিক্ষক-শিক্ষিকার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে যাদেরকে বাকী পুরো সময় প্রশিক্ষণ দানের মাধ্যমে সার্বিকভাবে প্রস্তুত করা হবে।
(৫) শিক্ষাদান পদ্ধতিঃ সফল ও নিপুণভাবে শিক্ষাদানের জন্য শিক্ষকদেরকে শিক্ষাদান পদ্ধতির বিভিন্ন দিকের উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে যা প্রথম পর্যায়ে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত নিয়মিত চলবে। এরপর বছরে দুইবার পূনঃ প্রশিক্ষণ পরিচালনা করা হবে। এর ভিত্তিতে শিক্ষকগণ ডেমোনস্ট্রেশন বা প্রদর্শনী ক্লাস নিবেন যেন তাঁরা ক্লাসে আশানুরূপ মানের পাঠদান নিশ্চিত করতে পারেন।
(৬) সুআচরণ ও শিষ্টাচারঃ আমাদের শিক্ষার্থীদেরকে ভদ্র, শিষ্ট ও চৌকষ হয়ে গড়ে তোলার অভিপ্রায়ে আমরা আমাদের শিক্ষকদেরকে সু-আচরণ ও শিষ্টাচারের উপর প্রশিক্ষণ দানের ব্যবস্থা করেছি যাতে তাঁরা ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সেভাবে পরিচালনা করতে পারেন। আমরা মনে করি, পরীক্ষায় ভাল ফলাফলের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সু-আচরণ একটি উন্নত ও ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অন্যতম নির্ণায়ক।
(৭) অপেক্ষারত অভিভাবকদের জন্য প্রশিক্ষণ কোর্সঃ অধিকাংশ শিক্ষার্থী, বিশেষ করে প্লে গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় বা তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদেরকে তাদের মা বা অন্য কোন অভিভাবক সাথে করে বিদ্যালয়ে নিয়ে আসেন। এদের অনেকেই শিক্ষার্থীদের ছুটি হওয়া পর্যন্ত পুরো সময়টি স্কুল প্রাঙ্গণে অতিবাহিত করেন। তাঁদের এই সময়ের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে আমরা অভিভাবকদের জন্য পর্যায়ক্রমে নি¤œলিখিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করছিঃ
ক। স্পোকেন ইংলিশ ঘ। কম্পিউটার চালনা
খ। সেলাই প্রশিক্ষণ ঙ। পুষ্প বিন্যাস
গ। রন্ধন প্রশিক্ষণ
এছাড়া, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাইভেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণে সহায়তা প্রদান ছাড়াও অভিভাবকদের জন্য থাকছে লাইব্রেরী ব্যবহারের সুযোগ।
(৮) বক্তৃতা / বিতর্কঃ নিয়মিত পাঠ্যসূচীর বাইরে আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে বাংলা ও ইংরেজিতে বক্তৃতা ও বিতর্ক শিক্ষার ব্যবস্থা, যা যুক্তি ও প্রত্যয়ের সাথে নিজেকে প্রকাশ করতে শিক্ষার্থীদের জন্য একান্ত সহায়ক হবে।
(৯) ক্লাব কার্যক্রমঃ আমাদের ক্লাব সমূহের কার্যক্রম শিক্ষার্থীদের জন্য একদিকে যেমন বিনোদনের মাধ্যমে হবে, তেমনি তাদেরকে সুকুমারবৃত্তির চর্চায় উদ্বুদ্ধ করবে। প্রতিটি শিক্ষার্থীর জন্য ন্যূনতম একটি ক্লাবের সদস্য হওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ক্লাব সমূহ নিম্নরূপ:
ক। মিডিয়া ও ফটোগ্রাফি ক্লাব চ। কম্পিউটার ক্লাব
খ। কালচারাল ক্লাব ছ। ল্যাংগুয়েজ ক্লাব
গ। বক্তৃতা ও বিতর্ক ক্লাব জ। ধর্মীয় ক্লাব
ঘ। চারু ও কারু ক্লাব ঝ। সাধারণ জ্ঞান ক্লাব
ঙ। বিজ্ঞান ক্লাব
(১০) চিকিৎসা ও মেডিকেল চেক আপ-এর ব্যবস্থাঃ শিক্ষার্থীদের জন্য একজন অভিজ্ঞ মেডিকেল সহকারীর ব্যবস্থাপনায় একটি ‘মেডিকেল ইন্সপেকশন রুম’ স্থাপন করা হচ্ছে। একজন প্রশিক্ষিত স্টাফ দৈনিক এখানে অবস্থান করবেন। স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সুবিধা দানের জন্য মাসিক ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মেডিকেল চেকআপ ও চিকিৎসা পরামর্শ দেওয়া হবে। প্রতি মাসের শেষ সপ্তাহে প্রতিজন শিক্ষার্থীর মেডিকেল চেক আপ করা হবে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া, জরুরী চিকিৎসার জন্য একজন মেডিকেল সহকারী ও ফার্স্ট এইড বক্সের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।
(১১) কম্পিউটার ল্যাবঃ আমাদের কম্পিউটার ল্যাবরেটরীতে রয়েছে ৩৬ টি কম্পিউটার ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক সরঞ্জামাদী। ১ম শ্রেণি থেকে শুরু করে উচ্চতর শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এই কম্পিউটার ল্যাব-এ তথ্যপ্রযুক্তি ও এর উপকরণ ব্যবহারে আধুনিকতম শিক্ষা গ্রহণ করার সুযোগ পাবে।
(১২) বি এন সি সি প্ল্যাটুনঃ শিক্ষার্থীদেরকে চৌকষ নাগরিক হিসাবে গড়ে তোলার অভিপ্রায়ে আমরা এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বি এন সি সি (বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর) এর একটি প্ল্যাটুন স্থাপন করতে যাচ্ছি। বি এন সি সি পরিচালিত বিভিন্ন কার্যক্রম যেমন শারিরীক শিক্ষা, ড্রিল, ক্যাম্পিং ও জাম্বুরী ইত্যাদিতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষার্থীরা দলগত কাজে অংশগ্রহণের অভিজ্ঞতা অর্জন ছাড়াও নিজ চারিত্রিক গুণাবলীর বিকাশ সাধনের ব্যাপক সুযোগ লাভ করবে। একই সাথে শিক্ষার্থীদের জন্য স্কাউট কর্মসূচীও চালু করা হবে।
(১৩) ‘স্টপ প্রেস’ / দেয়াল পত্রিকাঃ শিক্ষার্থীদের সাহিত্য চর্চায় উদ্বুদ্ধ করার জন্য ‘স্টপ প্রেস’ বা দেয়াল পত্রিকার ব্যবস্থা থাকছে। দেয়াল পত্রিকায় গল্প, কবিতা, ছড়া, চিত্রাঙ্কন ইত্যাদি প্রকাশের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের সাহিত্য প্রতিভার বিকাশ সাধনের সুযোগ পাবে। এছাড়া, প্রতিদিন শ্রেণি শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে ক্লাস ক্যাপ্টেন ক্লাসের বোর্ডে সেই দিনের পত্রিকার শিরোনাম লিখবে।
(১৪) পরামর্শ সেলঃ ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ালেখা ও সহ-শিক্ষা কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য থাকছে একটি পরামর্শ সেল।
(১৫) শারীরিক শিক্ষা ও প্রাথমিক ড্রিলঃ ক্যাডেট কলেজ সমূহের আদলে আমাদের প্রতিষ্ঠানে থাকছে শারীরিক শিক্ষা ও প্রাথমিক ড্রিল প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা। প্রতিদিন ক্লাস শুরু হবার পূর্বে এসেম্বলী বা সমাবেশ অনুষ্ঠানে বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত শিক্ষকবৃন্দ শিক্ষার্থীদেরকে শারীরিক শিক্ষা ও ড্রিল প্রশিক্ষণ প্রদান করবেন। ফলস্বরূপ ক্রমান্বয়ে শিক্ষার্থীরা শারীরিকভাবে সুগঠিত হওয়া ছাড়াও চটপটে বা স্মার্ট হয়ে গড়ে উঠবে।
(১৬) বিশেষ ক্যাডেট কোচিংঃ নিয়মিত পাঠ্যক্রমের বাইরে ক্যাডেট কলেজে ভর্তিচ্ছু ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে বিশেষ ক্যাডেট কোচিং এর ব্যবস্থা।
(১৭) খেলাধুলার ব্যবস্থাঃ কলেজ প্রাঙ্গণ ছাড়াও কলেজের নিকটবর্তী নিজস্ব খেলার মাঠে শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে ফুটবল/ভলিবল/ক্রিকেট প্রভৃতি খেলার ব্যবস্থা।
(১৮) পরিবহণ ব্যবস্থাঃ শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য থাকছে নিজস্ব পরিবহণের ব্যবস্থা। নিজস্ব ৩টি মাইক্রোবাস ছাড়াও স্কুল ভ্যানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পরিবহনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে একটি সমন্বিত পরিবহণ ব্যবস্থার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।
(১৯) মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ছাড় ও বৃত্তির ব্যবস্থাঃ মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে বিশেষ ছাড় ও বৃত্তির ব্যবস্থা। অভিভাবকদের আর্থিক সঙ্গতি বিবেচনা করে ভর্তি ও সেশন চার্জ-এ বিশেষ ছাড় দেওয়া ছাড়াও প্রতি বছর মেধার ভিত্তিতে এবং অভিভাবকের আর্থ-সামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে শিক্ষার্থীদেরকে বৃত্তি প্রদান করা হবে।
(২০) শিক্ষা সফর ও বনভোজনের ব্যবস্থাঃ প্রতি বছর নভেম্বর/ডিসেম্বর মাসে শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে শিক্ষা সফর ও বনভোজনের ব্যবস্থা।
(২১) শিশুদের জন্য খেলনাঃ শিশুদের জন্য ইতোমধ্যে আকর্ষনীয় খেলনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং আরও সংগ্রহ করা হবে। ক্লাসরুমের সন্নিকটে তারা এই খেলনা ব্যবহার করবে। আগামীতে একটি শিশু পার্ক তৈরী করার পরিকল্পনাও রয়েছে।
(২২) লাইব্রেরীঃ এই প্রতিষ্ঠানে থাকছে বিভিন্ন বিষয়ের উপর বিপুল সংখ্যক বই সমৃদ্ধ একটি অত্যাধুনিক লাইব্রেরী, যা পাঠ্যপুস্তকের বাইরে জ্ঞানার্জনের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে উদ্বুদ্ধ করবে। অভিভাবকরাও এই লাইব্রেরীর সদস্য হতে পারবেন।
(২৩) সি সি টি ভিঃ সম্পূর্ণ স্কুলটি সি সি টি ভি নেটওয়ার্কের আওতায় থাকবে এবং প্রতিটি ক্লাসের শিক্ষক / শিক্ষার্থীর কার্যক্রম সার্বক্ষণিকভাবে মনিটর করা হবে।
(২৪) আধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাঃ শিক্ষার্থীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে এখানে থাকছে নি¤œলিখিত অনুষঙ্গ সমৃদ্ধ একটি আধুনিক ও সমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থাঃ
ক। একজন শিক্ষার্থী স্কুলে প্রবেশের ১০ মিনিটের মধ্যে অভিভাবকের মোবাইল ফোনে তার উপস্থিতির সংবাদ সম্বলিত মেসেজ পৌঁছে যাবে।
খ। স্কুলের প্রবেশদ্বারে সার্বক্ষণিকভাবে প্রহরারত সিকিউরিটি গার্ড যে কোন অবাঞ্চিত ব্যক্তির প্রবেশ রোধ করবেন।
গ। ক্লাস শুরু হওয়ার ১০ মিনিট পূর্বে মূল গেট তালাবদ্ধ করা হবে- যা ক্লাস ছুটি হবার ৫ মিনিট পূর্বে পূনরায় খোলা হবে।
সময়ের পরিক্রমায় এগিয়ে চলেছে পৃথিবী, এগিয়ে চলেছে জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিক্ষা-সংস্কৃতির ব্যপ্তি আর উন্নততর হচ্ছে জীবন ব্যবস্থা। উন্নত বিশ্বের সাথে পাল্লা দিয়ে আমাদের দেশও এগিয়ে চলছে সমৃদ্ধির পথে। একটি দেশের কাঙ্খিত উন্নয়ন অর্জনের জন্য একটি উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থার গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের সন্তানদেরকে যুগোপযোগী ও আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে তাই প্রয়োজন আধুনিক শিক্ষাক্রম ও প্রশিক্ষণ। এই প্রয়োজনীয়তাকে সামনে রেখে বি এইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে এর শিক্ষার্থীদের জন্য একটি আধুনিক ও বিজ্ঞান-সম্মত শিক্ষাক্রম প্রণয়ন করেছে - যা নিঃসন্দেহে ব্যতিক্রমধর্মী। আমাদের সন্তানদেরকে সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তুলতে আমাদের এই প্রচেষ্টা প্রভূত সফলতা অর্জন করবে বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।

 

Read More

Principal's Message

Read More

Find Us On Map









Hit Counter